Uncategorized

কবে ফিরতে পারবেন কুয়েতে?

কুয়েত সিটি : ছুটিতে থাকা বাংলাদেশীরা কবে থেকে আবার কুয়েতে ঢুকতে পারবে, এই ব্যাপারে সব মহলই মুলত অন্ধকারে রয়েছে! কুয়েত সরকারের জারি করা নিষেধাজ্ঞার আওতায় নতুন করে আরো একটি দেশ ( আফগানিস্তান) এর অন্তভুক্তির কথা শোনা যাচ্ছে! আগে যা বিভিন্ন মিডিয়াতে এসেছিল, আগস্ট মাস বা আগে পরে প্রবাসীরা কুয়েত ফিরবে, তাও মিথ্যা বলে প্রমানিত হয়ে গেছে! আনুমানিক বা অনুমান করে, কুয়েতে ফিরতি ফ্লাইট আমরা কবে পাচ্ছি তা বলা মোটামুটি অসম্ভব! তবে, কুয়েত সরকারের বদ্যনতায়, দেশে থাকা অবস্থায় ও প্রবাসীরা আকামা নবায়নে সুযোগ পেয়েছেন, এটা এপ্রিশিয়ট করার মতো বিষয়!

করনার পরিস্থিতি আমাদের দেশে মোটেও ভাল নয়, এর উপরে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রকোপ ভয়াবহ! প্রবাসীদের ফেরত আনতে, আমার মতে সবচাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যেটা মাথায় রাখছে গালফের দেশ গুলো তা হল ” কোভিট ১৯ “! অবস্থার উত্তরন ও একটা ভুমিকা রাখবে সম্ভবত।

আমরা অনেকেই দেখলাম, দেশে মানববন্ধন করতেছি! ব্যাপারটা আমার কাছে ভাল লাগেনি, অনেকেই দুতাবাসের বিরুদ্ধে বলতেছি, কি জন্য? একটা দেশের ( কুয়েতের) আভ্যন্তরীণ ব্যাপার এটা, আর প্যানডেমিক কালীন সময়ে, ব্যাপারটা স্বাভাবিকই! এখানে দুতাবাসের পক্ষে কি করা সম্ভব? ডিপ্লোম্যাটিক ভাষা কখনোই এটা নয় যে, একটা দেশের ” রাষ্ট্রযন্ত্র ” যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা সরাতে বা প্রত্যাহারে অনুরোধ করা!

বুঝতে হবে, সাউথ এশিয়ার সবচাইতে বড় কুটনৈতিক ভাবে সবচে স্ট্রং শক্তি ভারত ও কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় আছে! আর ইরান বা পাকিস্তানের মত দেশ ও নিষেধাজ্ঞা বয়ে বেড়াচ্ছে!

ইতিমধ্যেই বাংলাদেশে থাকা প্রচুর পরিমান কুয়েত প্রবাসী কুয়েতে ফেরার বৈধতা অর্থাৎ আকামা হারিয়ে ফেলেছেন! কোথাও কোন আশার আলো ও লক্ষ্যনীয় নয়! প্রবাসীদের জন্য অন্যতম আকর্ষণীয় গন্তব্যস্থল ” স্টেট অফ কুয়েত ” নানা রকম আইন কানুন করেই যাচ্ছে! বিশেষত, কুয়েতিকরন ( কুয়েতি নিয়োগ) ও জনসংখ্যার ভারসাম্য আনয়নে প্রনীত – আলোচিত কৌটা আইন যদি ” রান ” করে, তাহলে বাংলাদেশীরা এমনিতেই বিশেষ বেকায়দায় পড়ে যাবে!

Related News

Add Comment