• মন্তব্য
Close

    কুয়েতে প্রবেশ বা ভ্রমণের সময় যাত্রীদের স্বাক্ষর নেওয়া ঘোষণা পত্রে যা লেখা আছে !!

    কুয়েত সিটি: বিশ্বব্যাপী করোনভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আলোকে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় কুয়েত বিমানবন্দর থেকে সমস্ত যাত্রাপথের উপর একটি ঘোষণা ফর্ম চাপিয়েছে এবং দেশ ছাড়ার আগে সেই ফরমে ভ্রমণকারীকে স্বাক্ষর করিতে হইবে ।

    আল-সেয়াসাহ’র বরাত দিয়ে আরব টাইমসে প্রকাশিত সংবাদে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে ।

    যারাই কুয়েত থেকে ভিন্ন দেশে ভ্রমণে যাচ্ছে বা প্রবেশ করতেছে, তাদেরকে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত ঘোষণা ফরমে স্বাক্ষর করতে হবে ।

    যাহা ইতিমধ্যে কুয়েত সকল বন্দর ও সীমান্ত চেক পোস্টে শুরু হয়েছে ।

    গতকাল আরটিএম নিউজে প্রকাশিত সংবাদটির ব্যাখ্যা জানতে চেয়ে প্রচুর এসএমএস এসেছে, তাই পাঠকের অনুরোধে বিষয়টি বুঝানোর চেষ্টায় আরেকটি নিউজ পাবলিশ করা হল।

    সে ফরমে কি লেখা আছে?
    কুয়েত স্বাস্থ্য ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশ ত্যাগের প্রাক্কালে একটি ঘোষণা পত্রে স্বাক্ষর নিচ্ছে।

    সে ঘোষণা পত্রকে আরবিতে বলা হয় ” ইকরার তাউহুদ” অর্থাৎ অঙ্গীকার নামায় স্বাক্ষর।

    # করোনাভাইরাস রোধে কুয়েতি কতৃপক্ষ তাদের এবং বিদেশী নাগরিকদের নিকট থেকে যে বিষয়ে অঙ্গীকার নিচ্ছে তা হল- আমি ঘোষণা দিচ্ছি যে, আগামীতে আমি প্রবেশের সময় প্রয়োজনে আমার শারিরীক চেক আপের জন্য ১৪ দিন পৃথকীকরণ কেন্দ্রে অবস্থান করিব।

    # কুয়েত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ৮ নং ( সাধারণ) ১৯৬৯ সালের আইন অনুসারে নাগরিক সুরক্ষা আইন তথা স্বাস্থ্য সচেতনতায় সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে সহযোগিতার অঙ্গীকার।

    # বাহির থেকে ভাইরাস বহন করে আসিলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দিষ্ট স্থানে বা পৃথকীকরণ কেন্দ্রে অবস্থান বা আপনার বাসায় অবস্থান করিতে হইবে।

    # সমস্ত প্রক্রিয়াটি আপনার আমার স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য নেওয়া হয়েছে, তাই কোন প্রকার ভয় বা গুজবে কান দেবেন না প্লিজ।

    আরটিএমের কুয়েত প্রতিনিধি শনিবার সকালে বিষয়টি যাচাই করে বাংলাদেশীদের সুবিধার্থে নিউজ আকারে পাবিলিশ করেছে।

    অবশ্য শেয়ার করে অন্যজনকে জানাতে ভুলবেনা প্লিজ।

    সুত্রঃ rtmnews24.com/